আপেল সিডার ভিনেগার খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

আপেল সিডার ভিনেগার খাওয়ার নিয়ম ও উপকারিতা

স্বাস্থ্য সচেতন মানুষদের মধ্যে আপেল সিডার ভিনেগার খুবই জনপ্রিয় । রক্তে শর্করা কমানো,  কোলেস্টেরল ও অতিরিক্ত ফ্যাট বা চর্বি কমানোসহ অনেক উপকার করে আপেল সিডার ভিনেগার। 

আপেল কেন খাবেন?

আপেল সিডার ভিনেগার তৈরি করা হয় আপেল গাজন বা ফারমেন্টেশন প্রক্রিয়ায়। আপেল সিডার ভিনেগারই রয়েছে এন্ট্রি অক্সিজেন্ট, অ্যাসেটিক এসিড ও খনিজ লবণ ,যা স্বাস্থ্যের ওজন কমাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে । 

আপেল সিডার ভিনেগার কয়েক ভাবেই খাওয়া যায় । যেমনঃ রান্নার সময় তরকারির সাথে দিয়ে রান্না করা যায়,  শরবতের মধ্যে ব্যবহার করে  খাওয়া যায়,  শসা বা গাজরের সালাতের সাথে মিশিয়ে খাওয়া যায়, পানির সাথে মিশিয়ে পানীয় হিসেবে আপেল সিডার ভিনেগার খাওয়া যায়। 

আপেল খাওয়ার উপকারিতা

আপেল খাওয়ার উপকারিতা

আমাদের দেশে ফল ফলাদির মধ্যে আপেল একটি অন্যতম জনপ্রিয় ফল । আপেল খেতে যেমন মজা, তেমনি তার উপকারিতায়ও কম নয় । সুস্থ জীবনযাপনের জন্য প্রতিটি ব্যক্তির স্বাস্থ্যকর খাবার এ অভ্যস্ত হওয়া খুবই প্রয়োজন । আপেলে মানব দেহের জন্য খুবই উপকারী কিছু উপাদান রয়েছে যা মানুষের সুস্বাস্থ্যের জন্য খুবই কার্যকরী ।

প্রতি ২০০ গ্রাম ওজনের একটি আপেলে রয়েছে , ৫গ্রাম ফাইবার ও ভিটামিন সি, ২৮ গ্রাম কার্ব, ১০৪ ক্যালোরি, পটাশিয়াম, ভিটামিন কে, ম্যাঙ্গানিজ , কপার,  ভিটামিন বি ১,২,৬, এবং ভিটামিন এ ও ই  অন্যতম । আপেলে আরো রয়েছে প্রচুর পরিমাণ পানিও । যা শরীরের ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। 

ভিনেগার খাওয়া কি হারাম?

যে খাবার সেবন করলে মানব দেহে ক্ষতি স্বধন হয় তা খাওয়া হারাম ।

সিডার ভিনেগার খাওয়ার উপকারিতা সমূহঃ 

  • শরীরের ফ্যাট কমায়
  • ওজন নিয়ন্ত্রণ করে
  • রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে
  • হৃদরোগের ঝুঁকি কমাতে সহায়তা করে
  • কোলেস্টেরল কমায় ও  স্ট্রোক ঝুঁকি কমায় 
  • হাপানোর তীব্রতা কমায়
  • এলার্জি থেকে সুরক্ষা পাওয়া যায়
  • দাঁত ধবধবে সাদা করে
  •  ডায়াবেটিসের ঝুঁকি কমায়
  •  ক্যান্সারের মত মরণব্যাধির  ঝুঁকি কমায়
গর্ভাবস্থায় আপেল খাওয়ার উপকারিতা

গর্ভাবস্থায় আপেল খাওয়ার উপকারিতা

আমরা জানি সাধারণ মানুষের তুলনায় গর্ভবতী মেয়েদের গর্ভাবস্থায় কিছু ব্যতিক্রম সমস্যা দেখা দেয় ।  যেমনঃ হরমোন পরিবর্তন হওয়ার কারণে অনেক মেয়েদের কোষ্ঠকাঠিন্য দেখা যায়, আবার কখনো হিমোগ্লোবিনের অভাব দেখা দেয় ।  যার কারণে সন্তান প্রসবকালে মা ও সন্তানের বড় ধরনের সমস্যার সম্মুখীন হতে হয় । 

আবার কখনো হজমশক্তি কমে যায় । এ সকল সমস্যা গুলোর এক মহা ঔষধ হলো আপেল ।  এটি বিশেষ করে প্রতিটি মানুষের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে খুবই কার্য করি যা অন্যান্য ফলে সচরাচর পাওয়া যায় না । 

আপেল সিডার ভিনেগার খাওয়ার নিয়ম

আপেল সিডার ভিনেগার বেশ কয়েকভাবে খাওয়া যায়

যেমনঃ

  •  শরবত বা জুসের সাথে ১-২ চা চামচ পরিমাণ মিশিয়ে সেবন করা যায় 
  • তরকারির সাথে মিশিয়ে রান্না করে খাওয়া যায়
  • সালাত বা শাক সবজির সাথে মিশ্রণ করেও খাওয়া যায়

আরো জানতে ক্লিক করুন : আঙ্গুর ফল খাওয়ার উপকারিতা

ওজন কমাতে আপেল সিডার ভিনেগার খাওয়ার নিয়ম

অনেক গবেষকদের মতে আপেল সিডার ভিনেগার ওজন কমানোর জন্য বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য ।  তবে তা একটি নিয়ম তান্ত্রিক ভাবে সেবন করতে হবে । 

খাওয়ার নিয়ম

 প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এক গ্লাস / হাফ লিটার পানিতে ১ চা চামচ আপেল সিডার ভিনেগার মিশ্রণ করে খেলে অল্প কয়েক দিনের মধ্যেই এর ফলাফল উপলব্ধি করা সম্ভব হবে বলে আশা করা যায় ।

উপরোক্ত আলোচনায় ভুল থাকলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখে আমাদের কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দেয়ার  অনুরোধ রইলো।